শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২২ ১৪২৭ ||  ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

ACI Agri Business

করোনা সংকট

১ বিলিয়ন ডলার বিশেষ ঋণ পাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষকরা

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০০:০৮, ২৮ মে ২০২০

করোনা মহামারিতে স্থবির হয়ে পড়া দেশের কৃষিখাতে প্রাণ ফিরিয়ে আনা এবং ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের সহায়তায় বিশেষ ঋণ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। করোনার ক্ষতি মোকাবেলায় মার্কন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষিত দুই ট্রিলিয়ন মার্কন ডলারের প্যাকেজ থেকে এক বিলিয়ন ডলার খরচ করা হবে কৃষি খাতে। যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগ-ইউএসডিএ এর ওয়েবসাইটে এই তথ্য জানানো হয়েছে।
 
ঘোষিত এক বিলিয়ন ডলারের এই ঋণ তহবিল থেকে চলতি মুলধন হিসেবে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীরা সহজ শর্ত ঋণ পাবেন। ঋণের টাকা ফেরত দিতে না পারলে তার ৯০ শতাংশ সরকারই পরিশোধ করে দিবে।

দেশটির কৃষি সচিব সনি পারডু জানান, ইউএসডিএ  এর নতুন এই কর্মসূচিটি  গ্রামীণ অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা করবে। কারণ করোনা মহামারির কারণে ব্যবসা-বাণিজ্যে ধ্বস নামার কারণে মুলধন হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরা। সকল ঋণে প্রায় ৯০% গ্যারান্টিসহ সর্বোচ্চ ১০ বছর মেয়াদের এই ঋণ দেয়া হবে, আর ঋণ গ্রহীতাদের অবশ্যই ঋণের আকারের সমান জামানত থাকতে হবে।

তবে সর্বাচ্চ কত টাকার ঋণ নেয়া যাবে সে বিষয়ে কিছু নিশ্চিত করেনি ইউএসডিএ। ইউএসডিএ এর বিদ্যমান বিজনেস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ প্রোগামে সর্বাচ্চ ৮০ শতাংশ পর্যন্ত গ্যারান্টি দেয় সরকার, সেটি ৫ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত। ঋণের আকার ১০ মিলিয়ন ডলার বা তার বেশি হলে ৬০ শতাংশ গ্যারান্টি দেয়া হয়। একজন কৃষক সর্বাচ্চ ২৫ মিলিয়ন ডলার ঋণ নিতে পারে এই প্রোগামের আওতায়।

যুক্তরাষ্ট্রের এক কৃষিকর্মী নতুন এই ঋণ সহায়তার প্রকল্পটিকে সাধারণ ঋণের বাইরে নতুন কিছু হিসেবে দেখছেন না। 

দেশটির ফার্ম সার্ভিস এজেন্সি বলছে, এই ঋণ কার্যক্রম আরো সম্প্রসারিত হওয়া উচিত এবং ঋণ ফেরত দেয়ার সময়সীমাও বাড়ানো উচিত। এজেন্সিটির প্রশাসক রিচার্ড ফোর্ডস বলেন, করোনা মহামারির ক্ষতি মোকাবেলায় এখনই কৃষকের সহায়তা প্রয়োজন, কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে এসব সহায়তা পাওয়া যায় মহামারি শেষ হয়ে যাওয়ার পর।  

Advertisement
Advertisement