মঙ্গলবার   ২২ অক্টোবর ২০১৯ ||  কার্তিক ৬ ১৪২৬ ||  ২২ সফর ১৪৪১

ব্রুডিং এর সময় বাচ্চার যত্ন ও করণীয়

ডা. শুভ দত্ত

প্রকাশিত: ২৩:২৭, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাচ্চা আনার পর কী দিবো? ব্রুডিং এ কী দিবো? খামারীদের এগুলো কমন প্রশ্ন। আসলে এই প্রশ্নের কোন সুনির্দিষ্ট উত্তর নেই। নেই, কারন বাচ্চা আনার পর বাচ্চার জন্য কি প্রয়োজন সেটা বিবেচনা করে ঠিক করতে হবে কী দিবেন। বাচ্চা আনার পর কী কী দিবেন আগে থেকে ঠিক করে রাখাটা বোকামী ছাড়া আর কিছুই না।

এ ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো বিবেচনায় রাখতে পারেন-

১. বাচ্চা আনার পর যদি দেখেন বাচ্চা পুরোপুরি সুস্থ্য, এলার্ট তবে শুধু পানি দেয়া উচিত। পুরোপুরি সুস্থ্য বাচ্চাতে গ্লুকোজ না দিয়ে শুধু পানি দিন (অনেক ক্ষেত্রে পানি থেকে এনার্জি পাবার কারনে খাদ্য গ্রহনে অনীহা চলে আসে)।

গরমকালে ঠান্ডা পানি ও ভিটামিন সি দেয়া যেতে পারে। শীতকালে কুসুম গরম পানি ও গ্লুকোজ দেয়া যেতে পারে। (শীতকালে বডি টেম্পারেচার মেনটেইন করতে এক্সট্রা এনার্জি ব্যয় হয় বলে এক্ষেত্রে গ্লুকোজ দেয়া যেতে পারে)।

২. বাচ্চা আনার পর যদি দেখেন বাচ্চাতে ডিহাইড্রেশন আছে অথবা বাচ্চার ড্রপিং এর সাথে প্রচুর পানি আসছে তবে স্যালাইন দেয়া উচিত। ডিহাইড্রেট অথবা পাতলা পায়খানা করা বাচ্চাতে গ্লুকোজ দেয়া ঠিক না। এতে ডিহাইড্রেশন বাড়তে পারে।

৩. বাচ্চা আনার পর যদি দেখেন বাচ্চা ঝিমাচ্ছে, শারিরীকভাবে দূর্বল, নড়চড়া কম করছে তবে বাচ্চাতে গ্লুকোজ পানি দিন। এক্ষেত্রে ইন্সট্যান্ট এনার্জি বাচ্চাকে শক্তি প্রদান করে সবল করে তুলবে। এক্ষেত্রে ভিটামিন-সি ও দিতে পারেন।

৪. বাচ্চা আনার পর যদি দেখেন বাচ্চা পুরোপুরি সুস্থ্য তবে এন্টিবায়োটিক ছাড়াই ব্রুডিং করুন। সুস্থ্য বাচ্চাতে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করে কোন লাভ নেই। বরং এতে বাচ্চাতে স্ট্রেস পরে।

৫. বাচ্চা আনার পর যদি দেখেন বাচ্চাতে ওম্ফালাইটিস, সালমোনেলা, ইকোলাই, এস্পারজিলোসিস বা হ্যাচারিগত কোন সমস্য আছে (অবশ্যই ডাক্তার দ্বারা নির্ধারিত হতে হবে) তাহলে ডাক্তারের পরামর্শে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করা যেতে পারে।

৬. অনেকের ধারনা ছিল একদিনের বাচ্চাকে ভিটামিন দেয়া ঠিক না। কারন এতে কুসুমথলি এ্যাবজর্বড হতে বেশী সময় লাগে। কিন্তু বর্তমানে পোল্ট্রি সায়েন্স একদিনের বাচ্চাকে ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট দিতে বলছে তার দ্রুত বৃদ্ধির জন্য। সুতরাং একদিনের বাচ্চাকে চাইলে ভিটামিন এ, ডি, ই বা মাল্টিভিটামিনও দেয়া যেতে পারে।

৭. সবচেয়ে গুরত্বপূর্ন কথা ব্রুডারে খাদ্য ও পানি রেখে তারপর বাচ্চা ছাড়তে হবে। বাচ্চা ছাড়ার ২ ঘন্টা পর খাদ্য দেবার পুরোনো অভ্যাস ভুলে যান।