শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২২ ১৪২৭ ||  ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

ACI Agri Business

দশ বছরে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ!

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৩২, ২৩ জুন ২০২০

ইলিশ উৎপাদনে বিশ্বে প্রথম স্থানে থাকা বাংলাদেশে বেড়েছে ইলিশের উৎপাদন। বাংলাদেশে মৎস্য অধিদপ্তরের দেয়া হিসাব অনুযায়ী ২০০৭ সালে প্রায় তিন লক্ষ মেট্রিক টন ইলিশ ধরা পড়েছিলো। সর্বশেষ মৌসুমে সেই উৎপাদন ছাড়িয়ে গেছে পাঁচ লাখ মেট্রিক টন।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০০৭-০৮ অর্থবছরে দেশে ইলিশের উৎপাদন ছিল ২ লাখ ৯০ হাজার টন। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে তা বৃদ্ধি পেয়ে হয় ৫ লাখ ১৭ হাজার টন। সূত্র জানায়, ২০১৯-২০২০ সমাপ্ত অর্থবছরে সেই রেকর্ড ভেঙে এখন পর্যন্ত ইলিশের উৎপাদন ৫ লাখ ৩৩ হাজার টনে উন্নীত হয়েছে। অর্থাৎ গত ১১ বছরের ব্যবধানে দেশে ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে প্রায় ৮৪ শতাংশ।

গত ৮ জুন জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) বৈশ্বিক প্রতিবেদনে প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, ২০১৯ সালে মিঠাপানির মাছে বাংলাদেশ তার তৃতীয় স্থান ধরে রেখেছে। বিশ্বে মাছ উৎপাদন বাড়ানোর দিক দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে। এ বছর দেশে মাছ উৎপাদন আরো বৃদ্ধি পবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিশ্লেষকরা।

পৃথিবীর মোট ১১টি দেশে বর্তমানে ইলিশ পাওয়া যায়। দেশগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, পাকিস্তান, ইরান, ইরাক, কুয়েত, বাহরাইন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ড। আহরিত ইলিশের প্রায় ৭৫ ভাগ বাংলাদেশ আহরণ করে। ১০ বছর আগে দেশের ২১টি উপজেলার নদ-নদীতে ইলিশ পাওয়া যেত। বর্তমানে ১২৫ থেকে ১৩০টি উপজেলার নদ-নদীতে ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। দেশে প্রায় ৭ হাজার বর্গ কিলোমিটার জুড়ে রয়েছে ইলিশের অভয়াশ্রম।
 
ইলিশ গবেষক ও মৎস্য বিজ্ঞানী চাঁদপুর মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আনিছুর রহমান  বলেন, ‘এ বছর নদীতে মাছের খাবার ভালো রয়েছে। সব স্থানের জলাশয়ে খাদ্য প্রচুর থাকায় ইলিশসহ সব মাছ দ্রুততার সঙ্গে বাড়ছে। করোনাসহ সম্ভবত আম্ফানের প্রভাবে এমনটি হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।এরকম দূষণমুক্ত পরিবেশ বহু বছর পরে লক্ষ করা গেছে। ইলিশ উৎপাদনে এ বছর পূর্বের সব রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড তৈরি হওয়ার হবে বলে আশা করেন তিনি। 

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে লকডাউনের কারণে প্রকৃতিতে দূষণ হ্রাস পেয়েছে অনেকাংশে। কল-কারখানা বন্ধ থাকায় কার্বন নিঃসরণ হ্রাস পেয়ে কমেছে বায়ু দূষণ; খাল-বিল, নদী-নালা এমনকি সমুদ্রেও কমেছে দূষণ। এর প্রভাবে কিছুটা হলেও ভারসাম্য ফিরেছে প্রকৃতিতে। জলজ প্রাণী এবং উদ্ভিদ প্রকৃতির নিজস্ব গতিতে বৃদ্ধির সুযোগ পেয়েছে। করোনার কারণে সমুদ্র দূষণমুক্ত থাকা, নদ-নদীতে ৬৬ দিন লঞ্চ বন্ধ থাকা ও অবৈধ মাছ শিকার নিয়ন্ত্রণে থাকায় ইলিশ উৎপাদনের রেকর্ড ভেঙে এবার নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হবে বলে ধারনা আশা করছেন গবেষকরা।
 

Advertisement
Advertisement