বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯ ||  কার্তিক ৮ ১৪২৬ ||  ২৪ সফর ১৪৪১

ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া প্রতিরোধে খেতে পারেন পেপে চা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৯:০৯, ৮ জুলাই ২০১৯

গতবারের তুলনায় ঢাকায় প্রায় দ্বিগুন বেড়েছে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিসংখ্যান মতে, গেলো বছর জানুয়ারি থেকে জুনের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ছিলো ১শ’ ৩৩ যা এবার গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২শ’ ৫৫ তে। আক্রান্তের এ উর্দ্ধগতিকে উদ্বেগজনক বলছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। 

আর এখন যেহেতু বর্ষা মৌসুম চলছে তাই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা আরও বেশি। ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে জনসচেতনতা বাড়াতে ইতোমধ্যে রোড শো করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। উদ্দেশ্য ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানানো হয় নগরবাসীকে। 

সব সচেতনতার পরও যদি আপনি ডেঙ্গু বা চিকনগুনিয়া জ্বরে আক্রান্ত হয়েই যান তাহলে করণীয় কী? তা নিয়ে চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীরা চালিয়ে যাচ্ছেন বিভিন্ন গবেষণা। তেমন একটি গবেষণা থেকেই বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের বিজ্ঞানীরা বলছেন, ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া রোগীদের জন্য পথ্য হিসেবে দারুণ কাজ করে পেপে পাতার চা। পরিষদের ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি ট্রান্সফার এন্ড ইনোভেশন এর প্রধান বিজ্ঞানী রেজাউল করিম বলেন, পেঁপে পাতার রসে কাইমোপ্যাপিন ও প্যাপাইন রয়েছে যা রক্তের প্লেটলেটের সংখ্যা ও রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করতে সাহায্য করে ৷ ফলে ডেঙ্গুর সঙ্গে লড়াই করার ক্ষমতা বেড়ে যায় ৷

রেজাউল করিম জানান, রোগীদের কথা চিন্তা করে তারা ইতোমধ্যেই পেপে পাতা ব্লেন্ড করে চা পাতার মতই মোড়কজাত করেছেন। গরম পানিতে মিশিয়ে চায়ের মতই খাওয়া যাবে এই পেপে পাতা বা পেপে চা। সাধারণত দিনে ১ থেকে ২ টেবিল চামচ খাওয়াই যথেষ্ট।

বিজ্ঞানীদের মতে পেপে পাতায় অ্যাসিটোজেনিন নামের এক ধরনের উপাদান থাকে যা ম্যালেরিয়া ও ডেঙ্গুর মতো রোগ প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। আর পেপে পাতার রস লিভার পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া এই রস লিভারের বিভিন্ন সংক্রমক রোগ, জন্ডিস  এবং লিভার সিরোসিসের চিকিৎসায়ও বেশ কার্যকর।

প্রাকৃতিক ইনসুলিন থাকায় পেঁপে পাতা রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। এ কারণে এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী।  এছাড়া এটি ফ্যাটি লিভার ও কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া প্রতিরোধ করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, পেঁপে পাতায় এথনোফার্মাকোলজি নামক এনজাইম থাকায় এটি লিভার, ফুসফুস, স্তন ক্যান্সারের মতো রোগ প্রতিরোধ করতে পারে। 

তবে শুধু রোগের নিয়ামক নয়, পেপে চা বা পেপে পাতার রস বাড়িয়ে তুলে তারুণ্য। পাতায় থাকা ভিটামিন এ ও সি ত্বকের তারুণ্য বাড়ায়।  চুলের যত্নে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে পেঁপে পাতার রস।