বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯ ||  কার্তিক ৮ ১৪২৬ ||  ২৪ সফর ১৪৪১

এক সবজিতেই প্রতিরোধ হবে স্তন ক্যান্সার, ডায়াবেটিস ও সর্দি-কাশি

কৃষিবিদ আফজাল হোসেন

প্রকাশিত: ২০:৪০, ২১ এপ্রিল ২০১৯

 

করলা একটি সহজপ্রাপ্য সবজি। কিন্তু খেতে একটু তেতো। এ কারণে আজকের প্রজন্মের বেশির ভাগ ছেলেমেয়েই এই সবজিটি খুব একটা ভালবেসে খায় না। কেবল ছোটরাই নয়, এমনকি বয়স্করাও যে খুব পছন্দ করেন তাও নয়। কিন্তু যদি শোনেন, ডায়াবেটিসসহ আরও বেশ কিছু রোগের যম এই করলা, তা হলে নিশ্চয়ই মন বদলাতে বাধ্য!

হ্যাঁ, ডায়াবেটিসের মোক্ষম দাওয়াই হিসেবে করলার কথাই বলছেন আধুনিক চিকিৎসকরা। কিন্তু কেন? গবেষণায় দেখা গেছে, করলায় প্রধানত তিনটি উপাদান রয়েছে। যথা: পলিপেপটাইড পি, ভাইসিন, চ্যারনটিন। এই তিনটি উপাদান এক যোগে রোগীর রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। এর মধ্যে পলিপেপটাইড পি-এর ভূমিকা অনেকটা ইনসুলিনের মতো।

কিন্তু কতটা খাব? কীভাবেই বা খাব? জার্নাল অব এথনোফার্মোকলজিতে একটি প্রতিবেদনে প্রকাশ, চার সপ্তাহ পরীক্ষার পরে একদল চিকিৎসক জানিয়েছেন, প্রতিদিন ২ গ্রাম করে করলা ডায়েটে রাখলে টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তে শর্করার পরিমাণ তাৎপর্যপূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণে থাকবে। চিকিৎসকরা পরামর্শ দিচ্ছেন সকালেই খালি পেটে এক কাপ করলার জুস খেয়ে নেওয়ার। 

ডায়াবেটিসসহ আরও বেশ কিছু রোগের যম করলা। শুধু শর্করা নিয়ন্ত্রণই নয়, করলা আরও নানা গুণের অধিকারী। জ্বর, ঋতুকালীন যন্ত্রণা, সর্দি-কাশির সমস্যাতেও কাজ দেয় এই করলা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লুইস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানিয়েছেন করলার রস ব্রেস্ট ক্যানসারের কোষকে ধ্বংস করতে সক্ষম।

এই আগুন বাজারেও করলার দাম সস্তা। স্বাদের কথা না ভেবে, শরীরের কথা ভেবে ডায়েটে করলা যোগ করুন, তাতে এই সব মারাত্মক রোগ থেকে রেহাই পাবেন সহজেই।

লেখক: আফজাল হোসেন, জেষ্ঠ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট, গাজীপুর।